শুক্রবার, ২১-জুলাই ২০১৭, ০৪:৪৮ পূর্বাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • নেত্রকোনায় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে বাদী
প্রকাশ : ১৭ জুলাই, ২০১৭ ০৭:২৩ অপরাহ্ন

নেত্রকোনায় প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে মামলা করে বিপাকে বাদী

শীর্ষ নিউজ, নেত্রকোনা: নেত্রকোনা জেলার আটপাড়া উপজেলার শুনই ইউনিয়নের ভোগাপাড়া গ্রামের  কৃষক মোশতাক একই গ্রামের প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করে মামলা রেকর্ড না করার অভিযোগ তুলেছেন। বর্তমানে হাত পা ভাঙ্গা অব¯’ায় হাসপাতালে চরম বিপাকে পড়েছেন তিনি।
নিজ এলাকার প্রভাবশালীদের অত্যাচার, নির্যাতন ও প্রাণনাশের হুমকি থেকে বাঁচতে দেড় মাস অন্যত্র পালিয়ে থাকার পর গত ২৯ জুলাই বুধবার রাতে গোপনে নিজ বাড়িতে যাওয়ার পর খবর পেয়ে সন্ত্রাসীরা তাকে পিটিয়ে মারাত্মক জখম করে হাত পা ভেঙ্গে দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ এলাকাবাসির সহযোগীতায় তাকে উদ্ধার করে আটপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।
মারাত্মক আহত মোশতাক পরে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে চিকিৎসার পর ময়মনসিংহ থেকে ভাঙ্গা পায়ের প্লাষ্টার করে বর্তমানে আটপাড়া হাসপাতালের বেডে অসহ্য যন্ত্রনায় ছটপট করছে।
তিনি জানান, আমার উপর চরম নির্যাতন করেছে তারা, আমি কোন বিচার পাইনি। থানায় অভিযোগ দায়ের করেছি এতদিন পার হলেও কি কারনে মামলা রেকর্ড হয়না? বর্তমানে হাত পা ভাঙ্গা অবস্থায় আমি হাসপাতালে যন্ত্রনার সময় কাটাচ্ছি।
এলাকাবাসি ও মোস্তাকের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ভোগাপাড়া গ্রামের মৃত হাজী হাসান আলীর পুত্র মোশতাকের সাথে একই গ্রামের খোরশেদ আলীর পুত্র তোফাজ্জল হোসেন পলাশের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে পূর্ব শত্রুতা চলে আসছিল। মোশতাক তার কতক সম্পত্তি ও তার আশপাশের কয়েকজনের জমি লিজ নিয়ে সেখানে বেঁড়ি বাঁধ দিয়ে মাছ চাষ করে আসছিল। পলাশ গংরা মোশতাকের কাছে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। মোশতাক চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করায় পলাশ গংরা ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২৩ মে মোশতাককে রাস্তায় একা মারপিট শুরু করলে সে কোন রকমে দৌড়ে বাড়ীতে ফিরে আসে। পরে পলাশ গংরা মোশতাকের ফিশারীর পাড় ভেঙ্গে ফেললে সেখান থেকে সমস্ত মাছ খাল বিলের পানিতে চলে যায়। এ ব্যাপারে মোশতাক বাদি হয়ে তোফাজ্জল হোসেন পলাশসহ ১৪ জনকে আসামি করে ২৫ মে নেত্রকোনার অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে মামলা দায়ের করে। বিজ্ঞ বিচারক মামলাটি আমলে নিয়ে আটপাড়া থানার ওসিকে তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ প্রদান করেন। আসামিরা মামলা করার বিষয়টি জানতে পেরে আরো বেশি ক্ষিপ্ত হয়। তারা গত ১লা জুন সংঘবদ্ধ হয়ে দেশিয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে মোশতাকের বাড়িতে অনুপ্রবেশ করে হামলা ও লুটপাট চালায়। এ সময় তারা পরিবারের অন্যান্য লোকজনকে এই বলে হুমকি দেয় যে, মোশতাক মামলা তুলে না নিলে তাকে প্রাণে মেরে ফেলা হবে।  এর পরপরই মোশতাক প্রাণভয়ে বাড়ীঘর ফেলে রেখে অন্যত্র পালিয়ে বেড়ায়।
গত ২৮ জুলাই বুধবার রাতে মোশতাক গোপনে বাড়িঘর দেখতে গেলে প্রতিপক্ষের লোকজন খবর পেয়ে তাকে ঘেরাও করে বেদড়ক মারপিট করে। খবর পেয়ে ¯’ানীয় লোকজনের সহযোগীতায় পুলিশ মারাত্মক আহত অবস্থায় মোশতাককে উদ্ধার করে আটপাড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।
আটপাড়া থানার অফিসার ইনচার্জ রমিজুল হক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এ ব্যাপারে  একটি অভিযোগ পেয়েছি বিষয়টি তদন্ততাধীন আছে।
শীর্ষ নিউজ/প্রতিনিধি/এনএমএম