শনিবার, ২৫-নভেম্বর ২০১৭, ০৫:৩০ অপরাহ্ন
  • জেলা সংবাদ
  • »
  • টেকনাফ মহিলা আ’লীগে স্থান পেলো ইয়াবা ব্যবসায়িরা

টেকনাফ মহিলা আ’লীগে স্থান পেলো ইয়াবা ব্যবসায়িরা

sheershanews24.com

প্রকাশ : ১৭ জুলাই, ২০১৭ ০৮:৫৬ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, কক্সবাজার: টেকনাফ মহিলা আওয়ামীলীগে স্থান পেলো চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়িদের স্ত্রীরা। এ নিয়ে থানায় তীব্র অসন্তোষ চলছে। আওয়ামী পরিবারের অনেকের দাবি, টেকনাফের ইয়াবা সিন্ডিকেটের নেত্রীরা স্থান পেলো নবগঠিত কমিটিতে। অথচ উপেক্ষিত থেকেছে পুরোনো ত্যাগী নেত্রীরা, যারা অতীতের আন্দোলন সংগ্রামে মাঠে ছিলো। অভিযোগ রয়েছে, প্রচুর টাকা দিয়ে তারা ঐতিহ্যবাহী এই মহিলা সংগঠনে পদ-পদবি নিয়েছে।
গত ১২ জুলাই ঘোষিত কক্সবাজার জেলা মহিলা আওয়ামীলীগ সভাপতি কানিজ ফাতেমা মোস্তাক ও সাধারণ স¤পাদক হামিদা তাহের স্বাক্ষরিত কমিটিতে টেকনাফ পৌরসভার সংরক্ষিত কাউন্সিলার কোহিনুর আকতারকে সভাপতি ও গোলাপজান আক্তারকে সাধারণ স¤পাদক করা হয়।
তবে এ কমিটি ঘোষণার পর আওয়ামীলীগ পরিবারে মধ্যে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে। উপজেলায় আওয়ামী পরিবারের এত নারী নেতৃত্ব থাকার পরও কেন বিএনপি ঘরনার নারী নিয়ে এ কমিটি ঘোষণা করা হলো- তা ভাবিয়ে তুলেছে রাজনৈতিক মহলকে।
ঘোষিত কমিটির সভাপতির স্বামী শাহ আলম একজন তালিকাভূক্ত চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও ২ নং ওয়াড যুবদলের সাবেক সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য।
অপরদিকে সাধারন সম্পাদকের স্বামী নূর হাকিম মিয়ানমার নাগরিক। তার পিতা-মাতাসহ পরিবারের কেউ বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পায় নাই। কিন্তু সে কৌশলে ভোটার তালিকায় অন্তভুক্ত হয়। বর্তমানে নূর পৌর ছাত্রদলের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছে।
জানা যায়, গত ২০০৬ সালের ৭ এপ্রিল জরুরী অবস্থা চলাকালীন টেকনাফ উপজেলার মহিলা আওয়ামীলীগের ৫১ সদস্য একটি কমিটি গঠন করা হয়। উক্ত কমিটির সভাপতি পৌর কাউন্সিলার নাজমা আলমের নেতৃত্বে জননেত্রী শেখ হাসিনার মুক্তি আন্দোলন এবং কেন্দ্র ঘোষিত বিভিন্ন কর্মসূচী সমূহ পালন করে সাংগঠনিক কর্মকান্ড চালিয়ে যাচিছল। শুধু তাই নয় এ কমিটি জাতীয় নির্বাচন সমূহে ব্যাপক ভূমিকা রাখে। জেলা আওয়ামীলীগের সভায় সম্মেলনের তারিখ ঘোষণা না করে, ওই কমিটি বহাল থাকা অবস্থায়  ৩৭ সদস্যের আরেকটি কমিটি ঘোষনা রহস্যের জম্ম দিয়েছে।
এ প্রসঙ্গে উপজেলার মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি নাজমা আলম বলেন, পূর্ব ঘোষণা ছাড়া আমাদের বৈধ কমিটিকে আড়াল করে তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী ও বিএনপি ঘরানার শাহ আলমের স্ত্রীকে সভাপতি ও সাবেক পৌর ছাত্রদল নেতা নূর হাকিমের স্ত্রীকে সাধারন সম্পাদক করায় আমরা বিস্মিত হয়েছি। ঘোষিত সভাপতি ও সাধারন সম্পাদক উপজেলা পর্যায়ে দূরে থাক ওয়ার্ড পর্যায়েও তাদের কখনো সদস্য পদও ছিলনা।
নব ঘোষিত কমিটির সভাপতি কোহিনুর আক্তার এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, সংগঠন উজ্জ্বীবিত করতে এমপি আব্দুর রহমান বদি উদ্যোগ নিয়েছেন। ওনার পরামর্শে আমাদের দায়িত্ব দিয়েছে জেলা কমিটি। মহিলা আওয়ামীলীগের কমিটি ঘোষণার ব্যাপারে কক্সবাজার জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হামিদা তাহের বলেন, স্থানীয় এমপি আব্দুর রহমান বদির অনুরোধে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে।
শীর্ষনিউজ//প্রতিনিধি//এআর