শনিবার, ২৫-নভেম্বর ২০১৭, ০৪:২৫ পূর্বাহ্ন

তিন লঞ্চডুবির ঘটনায় ২ লাশ উদ্ধার

sheershanews24.com

প্রকাশ : ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ১০:৫৮ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, শরীয়তপুর: শরীয়তপুরের নড়িয়ায় তিনটি লঞ্চডুবির ঘটনার তিনদিন পর বুধবার সন্ধ্যা পর্যন্ত দুজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এদের মধ্যে একজন নারী। এ নিয়ে নিখোঁজ ১৫ জনের মধ্যে মাত্র দুজনের লাশ উদ্ধার করা হলো।
ডুবে যাওয়া তিনটি লঞ্চের মধ্যে ঘটনাস্থল থেকে পাঁচ কিলোমিটার দূরে কাঁচিকাটা এলাকায় এমভি মৌচাকের সন্ধান পাওয়া গেছে। তবে লঞ্চটি পদ্মা নদীর ৪০-৪৫ ফুট গভীর পানির নিচে থাকায় সেটি উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না। এখনো সন্ধান মেলেনি ডুবে যাওয়া অন্য দুটি লঞ্চ এমভি নড়িয়া-২ ও মহানগরীর।
এদিকে উদ্ধারকাজের ধীরগতির জন্য অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন নিখোঁজদের স্বজনরা। অবশ্য উদ্ধারকারী দলের দাবি, পদ্মার প্রবল স্রোতের কারণে ব্যাহত হচ্ছে উদ্ধারকাজ।
এ বিষয়ে ফরিদপুর অঞ্চলের ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক এ বি এম মমতাজ উদ্দিন আহমেদ জানান, খুলনা থেকে আসা নৌবাহিনীর ডুবুরিদল, ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও বিআইডব্লিউটিএর কর্মীরা সম্মিলিতভাবে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছেন। এখন পর্যন্ত দুটি লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। যার মধ্যে পারভীন নামে এক নারীর পরিচয় নিশ্চিতের পর তাঁর লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে উদ্ধার হওয়া আনুমানিক ৪৫ বছর বয়সী এক পুরুষের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। নদীতে তীব্র স্রোতের কারণে উদ্ধারকাজ ব্যাহত হচ্ছে বলেও জানান এই কর্মকর্তা।
উদ্ধারকারী দলের সদস্য ও স্থানীয়রা জানান, দুপুরে নড়িয়া উপজেলার সুরেশ্বর পয়েন্ট এলাকার পদ্মা নদী থেকে অন্তঃসত্ত্বা পারভীন বেগমের লাশটি উদ্ধার করা হয়। পারভীন নড়িয়ার লুনশিং গ্রামের মোহাম্মদ আলীর স্ত্রী।
এরপর বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে পদ্মা নদী থেকে এক পুরুষের লাশ উদ্ধার করা হয়।
ডুবে থাকা লঞ্চ এমভি মৌচাকের সন্ধান পেলেও ৪০-৪৫ ফুট পানির নিচে থাকায় তা আপাতত উদ্ধার করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে লঞ্চটি চিহ্নিত করে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন উদ্ধারকারীরা। অন্য দুটি লঞ্চের সন্ধান ও উদ্ধারকাজ চালিয়ে যাচ্ছেন বলেও জানান তাঁরা।
গত সোমবার ভোরে হঠাৎ পদ্মাপাড়ের একটি বিরাট অংশ নদীতে ভেঙে পড়ে। এতে পানির তোড়ে ঘাটে ভিড়ে থাকা এমভি মৌচাক লঞ্চটি ডুবে যায়। এ সময় ঘাটে নোঙর করা মহানগর ও নড়িয়া-২ নামের লঞ্চ দুটিও ডুবে যায়। এতে মোট ১৫ জন নিখোঁজ ছিলেন।
শীর্ষনিউজ/প্রতিনিধি/এসএমএকে