বৃহস্পতিবার, ১৯-এপ্রিল ২০১৮, ০৩:৩৭ অপরাহ্ন
  • অর্থনীতি
  • »
  • আগামী বাজেটের পর কোটা সংস্কার: অর্থমন্ত্রী

আগামী বাজেটের পর কোটা সংস্কার: অর্থমন্ত্রী

sheershanews24.com

প্রকাশ : ১০ এপ্রিল, ২০১৮ ০৬:২১ অপরাহ্ন

 শীর্ষনিউজ, ঢাকা : আগামী বাজেট অধিবেশনের পরেই কোটা পদ্ধতির সংস্কার করা হবে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এই কথা বলেন তিনি।
এ বছরের বাজেট অধিবেশন কবে শুরু হবে তা এখনো জানা যায়নি। তবে গত বছরের ৩০ মে বাজেট অধিবেশন শুরু হয়ে ১৩ জুলাই পর্যন্ত চলে।
গতকাল আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের আগামী ৭ মের মধ্যে এই সমস্যার সমাধান করার আশ্বাস দিয়েছিলেন। তিনি বলেছিলেন, ‘মে মাসের ৭ তারিখের মধ্যে আমরা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছি, দেখছি কী দাঁড়ায়।’
অথচ আজ অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘কোটা অবশ্যই থাকবে। তবে এটাকে সংস্কার করতে হবে। এখন কোটায় সব পাওয়া যায় না। ফলে মেধা কোটা থেকেই নিতে হয়। এ অবস্থায় সংস্কার করা জরুরি। আগামী বাজেট অধিবেশনের পরই কোটা সংস্কার করে ৫৬ শতাংশ থেকে যৌক্তিক পর্যায়ে আনা হবে।’
তিনি আরো বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীকে বলেছি, এখন কোটা সংস্কার করা প্রয়োজন। আবার কোটা রাখাও প্রয়োজন। কেননা, অনগ্রসর জাতিগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতে কোটা রাখা প্রয়োজন এবং ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রী কোটা সংস্কারের বিষয়ে নির্দেশনা প্রদান করেছেন।’
অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘শেয়ার বাজারকে এখন আর কেউ ফটকা বাজার বলতে পারবে না। শেয়ার বাজার এখন ঠিক হয়ে গেছে। সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ কমিশন গত ছয় বছর ধরে শেয়ার বাজার নিয়ে সঠিকভাবে কাজ করছে এবং ভবিষ্যতেও শেয়ার বাজার ধসের কোনো আশঙ্কা নেই।’
ফারমার্স ব্যাংক প্রসঙ্গে অর্থমন্ত্রী বলেছেন, ‘ফারমার্স ব্যংক আসলে একটা দুষ্টু ব্যাংক। তবে এই ব্যাংকটির পতন হতে দিব না। এটিকে ঠিক করতে হবে। যদিও আমার সহকর্মীর অনেকেই সংসদে এই ব্যাংকটি নিয়ে কথা বলেছেন। তারপরও এই ব্যাংকটি ঠিক করতে হবে।’
দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ভ্যাট-ট্যাক্স নিয়েও অর্থমন্ত্রী কথা বলেছেন। তিনি বলেন, ‘বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে ইনকাম ট্যাক্স দিতে হবে, ভ্যাট নয়। তাঁরা প্রচুর ইনকাম করে। কিন্তু ঠিকমতো ইনকাম ট্যাক্স দেয় না। তাঁরা দেখায় তাদের কোনো ইনকাম নেই। তাঁরা দেখায় বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলো অলাভজনক প্রতিষ্ঠান। তাদের এই প্রচারণা ঠিক নয়।’
শীর্ষনিউজ/এম