সোমবার, ২৫-সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১১:০৭ অপরাহ্ন
  • অর্থনীতি
  • »
  • ‘সব কারখানায় শতভাগ বেতন-বোনাস দেয়া হয়েছে’

‘সব কারখানায় শতভাগ বেতন-বোনাস দেয়া হয়েছে’

প্রকাশ : ৩১ আগস্ট, ২০১৭ ০৬:০৫ অপরাহ্ন

শীর্ষনিউজ, ঢাকা: ঈদুল আজহার আগে সব পোশাক কারখানায় শতভাগ বেতন ও বোনাস দেয়া হয়েছে বলে দাবি করেছে পোশাক মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ।

অধিকাংশ কারখানায় আগস্ট মাসের অগ্রীম বেতনও দেয়া হয়েছে বলে জানায় সংগঠনটির নেতারা।

বৃহস্পতিবার বিজিএমইএ ভবনে পোশাক শিল্পখাতের শ্রম পরিস্থিতি বিষয়ক এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান বিজিএমইএ সভাপতি সিদ্দিকুর রহমান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ’র সহ-সভাপতি এসএম মান্নান কচি, সহ-সভাপতি (অর্থ) মোহাম্মদ নাছির, সহ-সভাপতি ফেরদৌস পারভেজ বিভন।

সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘আমাদেরর জানা মতে, উৎসব ভাতা ও জুলাই মাসের বেতভাতা প্রদান করা হয়েছে শতভাগ কারখানায়। শ্রমিকদের সঙ্গে সমঝোতা করে অধিকাংশ কারখানায় আগস্ট মাসের অগ্রীম বেতন আংশিক ও পূর্ণ প্রদান করা হয়েছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘বিজিএমইএর অধীনে ৩ হাজার ১০০টি কারখানা চালু আছে। আমরা এসব কারখানার কথা বলছি। সদস্য নয় এমন কারখানার কথা আমরা বলতে পারবো না। সেটা আমাদের দায়িত্বও নয়।’

তিনি জানান, এখন পর্যন্ত ছুটি হয়েছে ৯০ শতাংশ কারখানায়। আজকের মধ্যেই অবশিষ্ট কারখানাগুলো ছুটি দেয়া হবে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে বিজিএমইএর সভাপতি বলেন, ‘আসলে সব মালিকের হাতেইতো নগদ টাকা থাকে না। এবারও দুটি কারখানার মালিককে কারখানার মেশিন বিক্রি করে বেতন পরিশোধ করতে হয়েছে। ৪০ লাখ শ্রমিকদের হাজার হাজার কোটি টাকা বেতন দিতে কিছু সমস্যা হয়ওয়াতো স্বাভাবিক। তবে আমাদের জানা মতে, বেতন ভাতা পরিশোধ হয়নি এরকম ১টি কারখানাও নেই।’

চট্টগ্রাম পোর্টের সমস্যা তুলে ধরে সিদ্দিকুর রহমান বলেন, চট্টগ্রামসহ সব স্থল ও নৌবন্দরে মালামাল আমদানি-রপ্তানির কাজে ২৪ ঘণ্টা চালু থাকার কারণে আমদানি রপ্তানি কার্যক্রমে কিছুটা গতি এলেও সামগ্রিকভাবে ‘টার্ন এরাউন্ড টাইম’ এখনো কাঙ্ক্ষিত পর্যায়ে পৌঁছেনি।

বহির্নোঙ্গরে জাহাজের অবস্থানকাল এখনো ৪-৯ দিন, যা আরও কমিয়ে আনা প্রয়োজন। সেই সঙ্গে চট্টগ্রাম বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধির জন্য বন্দরে জেটি সংখ্যা বৃদ্ধি করা, ইয়ার্ড সম্প্রসারণ, কন্টেইনার হ্যান্ডলিংয়ের জন্য পর্যাপ্তসংখ্যক ইকুইপমেন্ট ও ক্রেন সংগ্রহ করার দাবিও জানান দেশের পোশাক কারখানা মালিকদের শীর্ষনেতা।

শীর্ষনিউজ/এইচএস